আশুলিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ও নারী শ্রমিক ধর্ষণের শিকার

আশুলিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ও নারী শ্রমিক ধর্ষণের শিকার

সাভারের আশুলিয়ার কাঠগড়া উত্তরপাড়া এলাকায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করে বখাটে তানভীর। ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে তানভীর রায়হান (৩৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া গ্রেপ্তারকৃত ধর্ষক রায়হানকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ভুক্তভোগী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর দায়ের করা মামলায় অভিযুক্ত যুবক তানভীর রায়হানকে গতকাল সকালে আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত তানভীর রায়হান ভোলা জেলার চর ফ্যাশন থানার জিন্নাঘর এলাকার বশির হাওলাদারের ছেলে। সে বর্তমানে রাজধানীর মোহাম্মদপুর টাউনহলে একটি ভাড়া বাড়িতে থেকে ব্যবসা করে। এবং ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী আশুলিয়ার কাঠগড়া উত্তরপাড়া এলাকায় বাবা-মায়ের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থেকে রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত তিন বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর এক বন্ধুর মাধ্যমে অভিযুক্ত রায়হানের সঙ্গে পরিচয় হয়। পরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আড়াই বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে রায়হান। পরবর্তীতে মোবাইল ফোনে ওই শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও ধারণ করা হয়েছে এবং তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে একাধিকবার তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে রায়হান। সবশেষ, গত ১৭ই জুন দুপুরে অভিযুক্ত তানভীর রায়হান কাঠগড়া উত্তরপাড়া এলাকায় ওই ছাত্রীর ভাড়া বাসায় আসে। এ সময় চাকরির সুবাদে ওই ছাত্রীর বাবা-মা দু’জনেই বাইরে থাকায় জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে রায়হান। বিষয়টি ছাত্রী স্বজনদের কাছে জানালে তাদের পরামর্শে শুক্রবার রাতে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ওই ছাত্রী। গতকাল সকালে অভিযুক্ত যুবক তানভীর রায়হানকে আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজহারুল ইসলাম জানান, আশুলিয়া কাঠগড়ায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে প্রেমের ফঁদে ফেলে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করে আসছিল তানভীর রায়হান। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত যুবক তানভীরকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে, আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় এক নারী পোশাক শ্রমিককে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বৃদ্ধ আনা মিয়ার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই নারী শ্রমিক থানায় মামলা দায়ের করলেও অভিযুক্ত আনা মিয়া পলাতক থাকায় তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এ ব্যাপারে নারী শ্রমিক ধর্ষণের মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ফজিকুল জানান, শুক্রবার রাতে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় কৌশলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে নারী শ্রমিককে ধর্ষণ করে আনা মিয়া।

Leave a Comment